Menu

বগুড়া জেলা বিএনপির পাল্টাপাল্টি আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা


সাতমাথা অনলাইন: বগুড়া জেলা বিএনপির দীর্ঘ দিনের বিরোধ আবারও প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে। আগের কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি গঠনকে কেন্দ্র বিভক্ত হয়ে পড়েছেন নেতাকর্মিরা।

সোমবার দুপুরে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে দলের সাধারণ সভায় পূর্বের দুই বছর মেয়াদি কমিটি ভেঙে দিয়ে পুরাতন কমিটির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলামকে আহ্বায়ক ও সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ৪৫ সদস্যের কমিটি ঘোষণার পর বিকেলে সাবেক সংসদ সদস্য হেলালুজ্জামান তালুকদার লালুর বাসভবনে আয়োজিত সভায় জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা, পৌর মেয়র এডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমানকে আহ্বায়ক করে পাল্টা আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা দিয়েছে দলের আরেক পক্ষ।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে শহরের নবাববাড়ি সড়কে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে আহ্বায়ক কমিটি গঠনকল্পে সাধারণ সভা আহ্বান করা হয়। জেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে নির্ধারিত সভা দুপুর ২টা পর্যন্ত চলে। সভায় কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেখানে বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নতুন কমিটিতে আহ্বায়ক ও যুগ্ম আহ্বায়ক নির্বাচিত হন। ৪৫ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটির অন্য সদস্যদের নাম পরে ঘোষণ করা হবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এদিকে, জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা বয়কট করে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মাহবুবর রহমানকে আহ্বায়ক করে পাল্টা আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এই প্রস্তাবিত আহ্বায়ক কমিটিতে যুগ্ম-আহ্বায়ক করা হয়েছে জেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল, আলী আজগর তালুকদার হেনা, মঞ্জুরুল হক মঞ্জু ও ডা: শাহজাহানকে।

নতুন ঘোষিত কমিটির আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম জানান, কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে দুই সপ্তাহের মধ্যে জেলার আহ্বায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশনা রয়েছে। সেই অনুযায়ী সোমবার সাধারণ সভা আহ্বান করা হয়। সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে নতুন আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।’ সিনিয়র নেতাদের সভা বয়কটের বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কেউ সভা বয়কট করেছে এমনটি আমার জানা নেই। পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে দলের ত্যাগী নেতাদের জায়গা দেওয়া হবে।’ পাল্টা কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দলীয় কার্যালয়ে সর্বসম্মতভাবে কমিটি হয়েছে, এর বাইরে কোনো কমিটি গঠনের সুযোগ নেই।’

এদিকে, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা ও বর্তমান কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল বাশার বলেন, দলের অনেক সিনিয়র নেতা সভা বয়কট করেছেন। সিনিয়র কোনো নেতা বা সাবেক সংসদ সদস্যদের মধ্যে একমাত্র অ্যডভোকেট হাফিজুর রহমান ছাড়া ওই সভায় কেউ উপস্থিত হননি। তারা আগে থেকেই সিদ্ধান্ত নিয়ে এসে সভায় বসে একটি মনগড়া কমিটির ঘোষণা দিয়েছে।

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন।

No comments

Leave a Reply

sixteen − six =

সম্পাদকীয়

    উপ-সস্পাদকীয়

    সংবাদ আর্কাইভ

    সংবাদ